মেহেদী সম্রাট এর অণুগল্প - ছায়া - সেরা-সংগ্রহ.কম
X

Tuesday, March 1, 2016

মেহেদী সম্রাট এর অণুগল্প - ছায়া

ছায়া

মেহেদী সম্রাট



হঠাৎ ছায়া টা নড়ে চড়ে উঠলো..! 

কেঁপে উঠলো বাঁশঝাড়। শ্যামল বাবু তখনও বসে ছিলেন তার কুঁড়েঘরের সামনে । কিছুখন আগেই তিনি মহাজনের বাড়ি থেকে ফিরেছেন। দু'কাঠার এই ভিটে টা শ্যামল বাবুর পৈতৃক সূত্রে পাওয়া। পেশায় স্কুল মাস্টার শ্যামল বাবুর এই দু'কাঠাই সম্বল। সেটাই আজ বন্ধক রাখতে গেছিলেন মহাজনের কাছে। ধূর্ত মহাজন দলিল রেখে মাত্র পাঁচ হাজার টাকা দিতে চাইলো।

তাতে কি আর হয়..!! মা মরা একমাত্র মেয়েটার বিয়েতে কম করে হলেও কুড়ি হাজার টাকা লাগবে। টাকার যোগাড় না হলে বিয়েটাই যে ভেস্তে যাবে! তাছাড়া এমন সুপাত্র কি সবসময় পাওয়া যায়.! মেয়েটার জন্য বড় মায়া হয় তার। দরিদ্র স্কুল মাস্টার শ্যামল বাবুর বুকের ভেতরটায় কেমন হাহাকার করে ওঠে।

আবার নড়ে ওঠে বাঁশঝাড়ের ঐদিকটা..!! বেরিয়ে আসে একটা অস্পষ্ট ছায়ামূর্তি। শ্যামল বাবু আকস্মিক উঠে পরে বসা থেকে। বিদ্যুৎ গতিতে ঘর থেকে হারিকেন নিয়ে এসে উঠোনে দাঁড়ায়। হারিকেনের আবছা আলোয় মুখ লুকানোর আগেই ছায়ামূর্তি টাকে এক ঝলক দেখে নেয় শ্যামল বাবু। ছায়ামূর্তি টাও আর দেরি করে না মোটেই। অন্ধকারে কোন একটা বস্তু ছুড়ে মারে শ্যামল বাবুর দিকে। তার পাঁয়ের কাছে এসে পরে ওটা। এরপর ছায়া টা নিমিশেই মিলিয়ে যায় অন্ধকারে।

শ্যামল বাবু কৌতুহলে কুড়িয়ে নেয় বস্তুটা। একটা কাপড়ে মোড়ানো কুড়ি হাজার টাকা ! দু'ফোটা নোনা জল শ্যামল বাবুর দুগন্ড বেঁয়ে গড়িয়ে পরে। অস্ফুটভাবে তার মুখ থেকে উচ্চারিত হয়, 'মহাজনদের ঘরেও তবে মানুষ জন্মায় !!!'